সাবধান! এই ৮ টি জিনিস কমোড ও বেসিনে ফেললেই বিপদ, সতর্ক থাকুন

এই ৮ জিনিস কমোড ও বেসিনে ফেললেই বিপদ- নিত্য প্রয়োজনীয় অনেক কিছুই আমরা না বুঝে রান্নাঘর কিংবা বাথরুমের বেসিনে ফেলে থাকি। যা পড়ে আমাদের জন্যই বিপদ হয়ে দাঁড়ায়। যে ভুলগুলো মাঝে মধ্যে আপনার জন্য দীর্ঘ ভোগান্তির কারণ হয়ে যায়। কিছু জিনিস আছে যেগুলো বেসিনে কিংবা বাথরুমে ফেললে পাইপ আটকে যায়। ফলে জল নির্গমন পথ বন্ধ হয়ে যায়। তাই আগে থেকেই জেনে রাখা জরুরি কোন জিনিসগুলো কমোড ও বেসিনে ভুলেও ফেলা যাবে না। তবেই বিপদ এড়ানো সম্ভব হবে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সেগুলো-

1. চাল ও পাস্তা- পাস্তা ও চাল জল শুষে নেয়, কিছু সময় পর প্রকৃত আকারের চেয়ে অনেক বড় হয়ে যায় এগুলো। ফলাফলস্বরূপ জায়গাও নেয় বেশি। পাশাপাশি এগুলো পুরোপুরি মিশে যেতেও প্রচুর সময় নেয়। সেজন্যে সহজেই পাইপের পথ আটকে যাবার সম্ভাবনা থাকে।

2. ডিমের খোসা- অনেকেই মনে করেন যে ডিমের খোসা ভেঙ্গে গুঁড়া গুঁড়া করে ফেললে সেটা আর পাইপে আটকাবে না। তবে ব্যাপারটা পুরোই ভুল। ডিমের খোসার ছোটো ছোটো টুকরোগুলো একটা আরেকটার লাগে লেগে বিশাল একটা অংশ তৈরি করতে পারে। যেটা ধীরে ধীরে পাইপের পথটাই বন্ধ করে দেবে।

3. আটা আটা পাইপে ঢুকলে বিপদ হতে পারে। তাই আটা কখনোই রান্নাঘরের সিংকে ফেলা উচিত নয়। কারণ পাইপের ভেতরে এই আটা জলের সঙ্গে মিশে একটি আঠালো মিশ্রণ তৈরি করে। যা ধীরে ধীরে আরো ময়লাকে আকৃষ্ট করে। অবশেষে জল আটকে যায়।

4. ওষুধ- অনেকের ধারণা ওষুধ খুব দ্রুত জলে গুলিয়ে যায়। আর এই ধারণা থেকে তারা মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ সিংকে বা বেসিনে ফেলে দেয় যাতে সেগুলি ড্রেনে চলে যায়। কিন্তু ব্যাপারটা ঠিক উল্টো। ওষুধ সহজে জলে মেশে না, বরং সেটা জলকে দূষিত করে দেয়। জলের ফিল্টার জলে থাকা সকল ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করতে সক্ষম হলেও ওষুধের এই প্রভাব থেকে পুরোপুরি মুক্ত করতে পারে না। জলে দীর্ঘদিন থেকে যায় এই ওষুধের এই মিশ্রণটি। সেই জলের সংস্পর্শে এসে দুষিত হয় আরো জল ।

5. চুল- বাথরুমের পাইপের লাইনে যত কারণে বাধার সৃষ্টি হয় তার মধ্যে অন্যতম হলো চুল। চুল পাইপের ভেতর আটকে যায় এবং একটি ছোটো বলের মতন তৈরি করে। এই বলটি একটি জালের মতন অন্যান্য ছোটো ছোটো জিনিসপত্রকেও আটকে দেয়। ফলে পাইপের মধ্যে অনেক জঞ্জাল মিলে একটি বাধার সৃষ্টি হয় এবং জল আর বের হতে পারে না। এটা থেকে মুক্তির জন্যে গোসলে যাবার আগে অবশ্যই চুলে চিরুনি চালান। এতে করে যেসব চুলের বন্ধন একেবারে অল্প সেগুলো আগেই চিরুনিতে চলে আসবে। পরে যাওয়া চুলগুলোকে ময়লার বাক্সে ফেলে দিন।

6. কনডম- কনডম বাথরুমের পাইপে আটকে পাইপ বন্ধ হয়ে জল যেতে না পারার ঘটনা আমাদের দেশে প্রচুর ঘটে। তবে এটি নিয়ে সেভাবে করে কখনো বলা হয় না। মনে রাখবেন, কনডম ল্যাটেক্সের তৈরি যেটা কখনোই জলে মিশে যায় না। ল্যাটেক্স অনেক বেশি দীর্ঘস্থায়ী এবং প্রয়োজনে কয়েকগুণ পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। ভুল করেও কখনো একটি কনডম আপনার বাথরুমের পাইপে স্থান করে নিলে তার মধ্যে জল থেকে শুরু করে সব প্রকারের ময়লা আবর্জনা গিয়ে জমবে এবং পুরো পাইপটাই বন্ধ হয়ে যাবে। আর এই সমস্যার সমাধানটাও খুব একটা সহজ হবে না।

7. সিগারেটের ফিল্টার- সিগারেটের ফিল্টারের প্রধান সমস্যা হলো, এটি জল শুষে আরো তরতাজা হয়ে যায়। আর সবচেয়ে ভয়াবহ ব্যাপার হলো, এটা কখনো পুরোপুরি জলে মিলিয়ে যায় না। পাশাপাশি জলকে বিষাক্ত করে দেয় সিগারেটের ফিল্টার। তাই সিগারেট শেষ করে সেটার ফিল্টার বাথরুমের বেসিন, কমোড বা রান্নাঘরের সিংকে ফেলার আগে অবশ্যই সাবধানতা অবলম্বন করুন। সিগারেটের ফিল্টারকে অ্যাশট্রেতে ফেলুন।

8.নারীদের ব্যবহৃত বিভিন্ন ব্যক্তিগত জিনিসপত্র- আমরা সবাই জানি যে নারীদের ব্যবহৃত ট্যাম্পন বা স্যানিটারি ন্যাপকিনের প্রধান বিশেষত্ব হলো, এগুলি প্রচুর পরিমাণে জল শুষে নিতে পারে। ছোট্টো একটি ট্যাম্পন পাইপে আটকে গেলে অনেক বড় বিপদ হতে পারে। তাই, ভুলেও এসব জিনিসপত্রকে কমোডে ফেলে ফ্ল্যাশ করবে না।

Related Posts

© 2024 Tech Informetix - WordPress Theme by WPEnjoy