ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে উঠে আসে মানিক সাহার নাম, আর এর পরেই হাতাহাতিতে জড়ালেন নেতা-মন্ত্রীরা

হঠাৎ ইস্তফা বিপ্লব দেবের। আর এরপরেই ত্রিপুরার আগামী মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মানিক সাহার নাম উঠে আসে। আর তা নিয়ে প্রকাশ্যে মারপিঠে জড়িয়ে পড়েন নেতা-বিধায়করা। একেবারে বিপ্লব দেবের সামনেই এই ঘটনা ঘটে। যা নিয়ে চরম অস্বস্তি ত্রিপুরা বিজেপিতে। যদিও পরে সমস্যা মিটিয়ে কোলাকুলিও করতে দেখা যায় বিজেপি নেতাদের।

বলে রাখা প্রয়োজন, শনিবার দুপুরে হঠাৎ করে মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দেন বিপ্লব দেব। আর এরপরেই রাজনৈতিকমহলে রীতিমত ঝড় ওঠে। কেন-কি জন্যে ইস্তফা তা নিয়ে শুরু হয়ে যায় জোর রাজনৈতিক বিতর্ক। আর এই বিতর্কের মধ্যেই ত্রিপুরার আগামী মুখ্যমন্ত্রী কে হতে চলেছেন তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়ে যায়। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মাণিক সাহাকেই বেছে নেন। আর এরপরেই বিপ্লব দেব রাজ্যের ভাবী মুখ্যমন্ত্রীকে জড়িয়ে ধরেন। শুধু তাই নয়, উত্তোরিয় পড়িয়ে মাণিক সাহাকে স্বাগত জানাতে গেলে মারমুখী হয়ে ওঠেন এক বিধায়ক। একেবারে তাঁর আসন ছেড়ে উঠে কেন্দ্রীয় নেতাদের মারতে যান বলেও অভিযোগ।

শুধু তাই নয়, কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সামনেই নতুন মুখ্যমন্ত্রীকে ধাক্কা দিলেন রাজ্যেরই আরেক মন্ত্রী। আর তা নিয়ে রীতিমত উত্তেজনা-হাতাহাতি ছড়িয়ে পড়ে বৈঠকের মধ্যে। এমনকি বাইরে থেকে চিৎকার চেঁচামেচিও শুরু হয়ে যায় একেবারে। যদিও কোনও রকমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন বৈঠকে থাকা অন্যান্য নেতা-বিধায়করা। এক বিধায়কের দাবি, আলোচনার জন্যে সবাইকে ডাকা হলেও আলোচনা না করেই মাণিক সাহার নাম মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ঘোষণা করে দেওয়া হয়। আর সেই কারণেই ক্ষোভ বলে দাবি তাঁর।

ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রকাশ করা হয়েছে তৃণমূলে’র তরফে। শুধু তাই নয়, তা প্রকাশ করে ত্রিপুরা বিজেপিকে আক্রমণও করা হয়েছে। পাশাপাশি বিপ্লব দেবের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে ত্রিপুরা তৃণমূলের তরফে।

Related Posts

© 2024 Tech Informetix - WordPress Theme by WPEnjoy