আপনার বন্ধু আপনাকে প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবে, ঈর্ষা করে! বুঝেনিন ৫ লক্ষণে

যদি এমন বন্ধু থাকে, যে আপনার পাশে থাকে, আপনাকে বিশ্বাস করে—এমন বন্ধু পাওয়া সত্যিই আশীর্বাদ। কিন্তু বন্ধু যদি মনে মনে আপনাকে ঈর্ষা করে, আপনার সাফল্যে হিংসা করে আর আপনার সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামে, তাহলে? নিশ্চয়ই আপনার ভালো লাগবে না।

কিন্তু এমনও ঘটে থাকে। বন্ধুই বন্ধুর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামে। ঈর্ষাপরায়ণ হয়। তবে অনেকে পড়তেই পারেন না বন্ধুর মনের কথাটি। ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই এক প্রতিবেদনে এমন কিছু লক্ষণ প্রকাশ করেছে, যা দেখে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার বন্ধু প্রতিযোগিতায় নেমেছে, প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবে। আসুন, চোখ বুলিয়ে নিই—

আপনার সাফল্যে ঈর্ষা করে

বন্ধু আপনার সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমেছে, এটা বোঝার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণ হলো সে আপনার সাফল্যে ঈর্ষা করে। সে আপনাকে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দেয়, আপনি কখনও সফল হতে পারবেন না বা ভালো কিছু করতে পারবেন না। শুধু তা-ই নয়, সে আপনাকে লক্ষ্যে পৌঁছাতে বাধাও দেয়।

আপনার ব্যর্থতায় খুশি হয়

কোনও কিছুতে আপনি সফল হলেন আর দেখলেন আপনার বন্ধুর মুখে হাসি নেই। তাহলে বুঝবেন, বন্ধু আপনার সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমেছে। যেখানে বন্ধুর উচিত আপনাকে সহায়তা করা, পাশে থাকা, সেটি না করে সে এড়িয়ে যায়। আপনার ব্যর্থতায় যদি বন্ধুর হাসিমুখ প্রত্যক্ষ করেন, তবে বুঝে নিন, সে নিশ্চিত প্রতিযোগিতায় নেমেছে।

আপনার সাফল্য খুব কম উদযাপন করে

ধরা যাক, আপনি ক্যারিয়ারের তুঙ্গে রয়েছেন। আপনার বন্ধু কি তা ঠিকঠাক উদযাপন করে? যদি না হয়, তার কারণ, আপনার বন্ধু প্রতিযোগিতার চেষ্টা করছে। খুশি হওয়া বা প্রশংসার পরিবর্তে সে আপনার অনালোকিত দিকগুলো নিয়ে ব্যস্ত থাকে। এমনকি আপনার সাফল্য উদযাপন না করে কিছু অজুহাত দিয়ে আপনাকে এড়িয়ে যায়। এটা কিন্তু স্পষ্ট লক্ষণ।

বন্ধু আপনাকে অনুকরণ করে

ধরা যাক, আপনি রান্না বা নতুন কিছু শিখছেন। অথবা নতুন পোশাক কিনেছেন। বন্ধুও একই কাজ করল। আপনি হয়তো ভাবছেন, বন্ধু আপনার দ্বারা অনুপ্রাণিত। কিন্তু না, সে আসলে আপনাকে অনুকরণ করছে, প্রতিযোগিতায় নেমেছে। মাঝেমধ্যে দেখবেন, আপনার ক্রেডিটটাও ঠিকমতো সে দিচ্ছে না। অতএব, এবার বন্ধুর মন পড়তে শিখুন।

আপনার নেতিবাচক দিক তুলে ধরে

সত্যিকারের বন্ধু সব সময় আপনার জীবনের ইতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করবে। আপনার মেধা ও সামর্থ্যের ওপর আস্থা রাখবে। কিন্তু বন্ধু যদি আপনার নেতিবাচক দিকগুলোর ওপর বেশি জোর দেয়, ব্যর্থতার দিকগুলো তুলে ধরে, তাহলে বুঝবেন সে আপনার সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমেছে। আপনি যা-ই করেন, সে ভুল-ত্রুটি ধরার চেষ্টা করে, যা আপনাকে খারাপ অনুভূতি এনে দেয়। এটাও স্পষ্ট লক্ষণ।

ভালো বন্ধু পাওয়া সৌভাগ্যের। কিন্তু বন্ধু যদি ঈর্ষাপরায়ণ হয়, আপনার ভালোটা সুনজরে না দেখে, তবে সে কেমন বন্ধু? আমরা কয়েকটি লক্ষণ আলোকপাত করলাম মাত্র। জীবন চলার পথে কে সাথি আর কে পরশ্রীকাতর, তা আপনিই টের পাবেন। নানান লক্ষণ তো আপনার নজরেও আসবে। অতএব, বন্ধু তোমার পথের সাথিকে চিনে নিয়ো…

Related Posts

© 2024 Tech Informetix - WordPress Theme by WPEnjoy